>>>কিছু প্রশ্ন

দিশা যখন ক্লাস এইট এ পড়ে তখন তাকে তার পাশের বাড়ির ছেলে তনু তাকে Propose করে..

দিশাও কোনো কিছু না ভেবে রাজী হয়ে যায় সে জানত তনু ছেলে টা ভালো….
কিন্তু তনু যে ভালো ছেলে নয় তা দিশা জানত না দিশা ছাড়াও আরো অনেক মেয়ের সাথে তনুর সম্পর্ক ছিল।

পাশাপাশি বাড়ি হবার ফলে তারা দুইজন বারান্দায় দাঁড়িয়ে কথা বলত।

দিশা যখন টেন এ পড়ে তখন তারা প্রথম দেখা করে,
তনু দিশাকে ভালবেসে ছিল শুধু মাত্র দিশা বড়লোক বলে…
আসলে ভালবাসা নয় এটা ছিল অভিনয়।

এস এস সি পরীক্ষার পর দিশারা বাসা পরিবর্তন করে আসার সময় তনু দিশাকে একটা পুরান মোবাইল উপহার দেয়…

মোবাইল পেয়ে দিশা অনেক খুশি হয়…
তনু পরে মোবাইল বাবদ দিশার কাছ থেকে ৫০০০ টাকা নেয়…

তনু কখনো দিশা কে কল করত না, তনু দিশাকে মিসকল দিত আর দিশা কল ব্যাক করত… দিশা প্রায় ই তনুর মোবাইলে টাকা ভরে দিত…
সে ভেবেই পেত না তনুর টাকা কীভাবে শেষ হয়ে যেত।

দিশার যেসব বন্ধু দিশা কে তনুর ব্যাপারে সাবধান করে দিত তনু তাদের সাথে দিশার ঝগড়া লাগিয়ে দিত…

তনু মাঝে মধ্যেই দিশার কাছ থেকে ব্যবসার নাম করে টাকা নিত…বোকা দিশাও বিশ্বাস করে তনু কে টাকা দিত…

তনু দিশা কে বলত সে সফট ওয়ার ডিজাইনার আসলে সে ছিল PHYSICS থেকে পাস করা এক বেকার যুবক…

H.S.C পরীক্ষার আগ পর্যন্ত দিশা তনু কে প্রায় ১ লাখ টাকা দেয়…
H.S.C পরীক্ষার পর দিশা BRAC UNIVERSITY তে ভর্তি হয়…

তনুর কথা মত সে একটা জায়গায় চাকুরি নেয় এবং তনুর ব্যবসা সফল করার জন্য তার প্রতিমাসের বেতনের টাকা তনু কে দিয়ে দিত…

এভাবে কেঁটে যায় দুই বছর…

হঠাত্‍ তনু একদিন দিশাকে কল করে বলে তার ৩ লাখ টাকা দরকার নাহলে তার ব্যবসা লাটে উঠবে…

দিশা তার Semester ফি না দিয়ে তার LAPTOP আর কিছু সোনার গহনা বেঁচে তনু কে ৩ লাখ টাকা যোগাড় করে দেয়…

তনু খুব খুশি হয়…

এর ১সপ্তাহ পর থেকে দিশা তনুর মোবাইল বন্ধ পায় আর কখনো সে নাম্বার খোলা পায়নি পাবে কী করে তনু যে দিশার টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছে বহু দূরে

দিশা আজ ও জানেনা তার অপরাধ কী ছিল??

কেন তনু তার মন এবং বিশ্বাস নিয়ে খেলল??

এই প্রশ্নের উত্তর দিশা এখন ও খুজে পায়নি…!

Advertisements