একটা নীল গোলাপ আর কিছু ভাঙা স্বপ্ন

আমার এক ফ্রেন্ড আরেফিন। আরেফিন নীলা নামের একটা মেয়েকে ভালবাসে সেই ক্লাস ১০ থেকে। আরেফিন আর নীলা একই কোচিং এ ক্লাস করতো। সেখানেই দুজনের পরিচয়।
আরেফিন নীলাকে প্রপোজ করে অনেকটা রেস খেলার মতই… আরেফিন যেদিন নীলাকে প্রপোজ করেছিল সেদিন রাতেই সেই কোচিং এর আরেক ছেলে সান প্রপোজ করে…
নীলা জানিয়ে দেয় সে আরেফিন কে পছন্দ করে…

নীলা সেদিন ঢাকার বাইরে চলে যায়… নীলা ঢাকায় থাকতো না, সে কোচিং করার জন্যই ঢাকায় এসেছিল…
ঘটনার পরদিন আরেফিন অনেক খুশী… সে আমাকে বলে মামা আমি অনেক খুশী… সান কে চরম একটা বাঁশ দিসি… বলদ একটা… শুভ কাজে কখনো দেরী করতে হয় না… বলদ টা এটা জানে না… প্রপোজ করবি তো কর আমি যেদিন করলাম সেদিন রাতেই কিনা করলো… !!

দেখতে দেখতে এস.এস.সি পরীক্ষা হয়ে যায়… আরেফিন ভালো রেজাল্ট করে…
ভালো একটা কলেজে ভর্তি হয়…
নীলা ঢাকার একটা কলেজে ভর্তি হয়… দুজনের মধ্যে সমস্যা শুরু হয়…
নীলা আরেফিনের থেকে দূরে সরতে শুরু করে… একসময় সে জানিয়ে দেয় তার পক্ষে এই সম্পর্ক আর বয়ে নেয়া সম্ভব নয়…

নীলার মা ছিল পুলিশ অফিসার, সে জানতে পারে নীলার সাথে একটি ছেলের সম্পর্ক রয়েছে… সে নীলাকে মার-ধর করে এবং মোবাইল নিয়ে যায়…

আরেফিনের সাথে নীলার ব্রেক আপ হবার কিছুদিন পরের ঘটনা এটা… আরেফিন এটা জানতে পারে…

আমার বাসার কয়েকটা বাসার সামনে নীলার এক বান্ধবির বাসা, আমার রুমের জানালায় বসলে নীলার বান্ধবি সামিয়ার বাসার বারান্দা দেখা যায়…
সামিয়ার বাসার নিচে এক স্যার এর কাছে নীলা আর সামিয়া পড়তো…
স্যার আসতে মাঝে মাঝে দেরী হলে বা অন্য কারনে নীলা সামিয়ার বাসায় আসতো…
আরেফিন মাঝে মাঝে আমার বাসায় এসে আমার রুমের জানালা দিয়ে সেদিকে তাকিয়ে থাকতো যদি নীলাকে সে দেখতে পায়…

আরেফিন দূর থেকে নীলাকে দেখত… কিন্তু সামনে আর যায়নি…
মোবাইল চ্যাটিং থেকে আরেফিনের সাথে মায়া নামের এক মেয়ের পরিচয় হয়…
এক সময় তা ভালবাসার দিকে গড়ায়… আরেফিন মায়াকে টাইম পাস হিসেবেই নিয়ে ছিল… মায়াকে অন্য একটা ছেলে খুব ভালবাসত… কিন্তু মায়া তাকে উপেক্ষা করে আরেফিনর দিকে আগায়…

এক সময় আরেফিনর সাথে সেই ছেলেটির কথা বলিয়ে দেয়… ছেলেটি আরেফিনকে বলে আপনি অনেক লাকি… আমি ওকে এতটা ভালবেসেও পেলাম না… ভাল থাকেন আপনি… ছেলেটির কণ্ঠস্বর ভেজা ভেজা শুনাচ্ছিল… বুঝতে বাকি থাকে না ছেলেটি যখন এই কথা গুলো বলছিল আর কাঁদছিল… ছেলেটির নাম ছিল অপূর্ব…

এইচ.এস.সি পরিক্ষার কিছুদিন বাকি… নীলা আরেফিনের জীবনে ফিরে আসে… আরেফিন তার জীবন থেকে বিগত ২ বছর মুছে ফেলে… নীলা যেখানে তাকে ছেড়ে গিয়েছিল সেখান থেকেই সে আবার শুরু করে… মায়ার মায়া কাটিয়ে আরেফিন নীলাকে নিয়ে বাঁচতে চায়…

মায়া মুছে যেতে থাকে আরেফিনের জীবন থেকে…

এইচ.এস.সি পরিক্ষায় আরেফিন ভালো করে…
নীলা আর আরেফিনের দিন ভালোই যাচ্ছিলো…
নীলা একদিন আরেফিনকে বলে বসে আমি কিন্তু তোমার বোনের সাথে থাকতে পারবো না…

কথাটা আরেফিনকে অনেক আঘাত করে… আরেফিনের মা নেই… তার বোনই তার সব… তাকে এতদূর নিয়ে এসেছে… আরেফিন নীলাকে ছেড়ে দেয়…
আরেফিন এর দুই দিন পর আমায় বাসায় আসে…
আরেফিন কাঁদছে আর আমাকে বলছে দোস্ত আমার ভালবাসাকে বিদায় দিয়ে আসলাম… আমি কথার কিছুই বুঝতে পারি নাই… আরেফিন আমাকে বিষয় টা খুলে বলে… আমাকে সে বলে, নীলা বলেছে ও আমার বোনের সাথে থাকতে পারবে না…

আমার বোন তো চিরদিন আমার সাথে থাকবেনা, ওর তো এক সময় বিয়ে হয়ে যাবে… তখন হাজার চাইলেও দুই ভাইবোন একসাথে থাকতে পারবো না…
যে মেয়ে এত টুকু বোঝে না সে আবার ভালবাসার কি বোঝে?? ও যখন এখনই এই কথা বলেছে, ও পরে কি বলবে??

আরেফিন সামনের মাসে দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে..

আরেফিনের জীবনে যা ঘটার ঘটে গেছে, প্রার্থনা করি ওর নতুন জীবনটা সুন্দর হোক…
আর আরেফিনর প্রতারণা থেকে মায়া যেন শিক্ষা নেয়, তার সত্যিকার ভালবাসা অপূর্ব কে খুজে নেয়… মায়া যেন অপূর্বর কাছে ফিরে যায়…

আমি মনে করি মায়ার উচিৎ অপূর্বর কাছে ফিরে যাওয়া… অপূর্ব কখনোই তাকে ফেরাবে না… কেননা অপূর্ব সত্যিই মায়া কে ভালবাসে… তা না হলে সে কখনোই মায়াকে আরেফিনের হাতে তুলে দিত না…

________________________________________

আপনাদের কি মত?

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: